Wednesday , August 5 2020
Home / গল্প / ভালবাসার গল্প / ” বাবু একটু বারান্দায় আয় তো “
বাবু একটু বারান্দায় আয় তো

” বাবু একটু বারান্দায় আয় তো “

___ ” বাবু একটু বারান্দায় আয় তো “।

ফোন রিসিভ করতে করতে ভাবছিলাম এত রাতে ফোন দিল কেন রাসেল ভাই। যখনই বলল বারান্দায় যেতে আমার বুকটা ধক করে উঠলো। মনে মনে আউড়াতে লাগলাম সারাদিনে কি কি সুকাম আকাম করছি। ঘড়িতে তাকিয়ে দেখি রাত ২ঃ১০। এত রাতে বারান্দায় কেন? চিন্তা ভাবনা সব বাদ দিয়ে বারান্দায় যেতেই দেখি তিন চারজন দাঁড়ানো ল্যামপোষ্টের নিচে। আমার মাথায় যেন সব আউলাঝাউলা লেগে যাচ্ছে। আমাকে দেখেই বাকি সবাই পিছনে সরে গেল। ল্যাম্পপোস্ট এর নিচে শুধু রাসেল ভাই দাঁড়ানো। ধীরে ধীরে পেছন থেকে বিশাল একটা প্লা কার্ড বের করে মাথার উপরে তুলে ধরল। এক নিমেষেই আমার নিঃশ্বাস যেন আটকে আসলো চোখ ঝাপসা হয়ে গেল৷ চশমা ছাড়াও পরিষ্কার দেখতে পারলাম প্লা কার্ডে লেখা,

Bangla Romantic golpo
বাবু একটু বারান্দায় আয় তো


” Happy Birthday to Babu “


” i love you একটুও না “।
ঠোঁটের কোন এক টুকরো হাসি ফুটে উঠলো। এই রাতের বেলায় এসেছে আমাকে উইশ করতে তাও লেখেছে ভালবাসে না। কই যাব এই মানুষটাকে নিয়ে আমি। ইশারা দিয়ে বললাম আমি নিচে আসতেছি। দেখলাম রাসেল ভাই সজোরে মাথা নেড়ে মানা করল। আমি জানি মুখে যতই বলুক না কেন সে চাচ্ছে আমি নিচে নামি। বারান্দা থেকে ঘরের ভেতরে এসে রুমের দরজা খুললাম। খুলে পা টিপে টিপে মেইন ডোর বাইরে থেকে লক করে তীরের বেগে নিচে নেমে আসলাম। নিচে নেমে মেইন গেট খুলে রাস্তায় উঠেই দেখলাম তার হাতে বিশাল বড় এক র‍্যাপিং পেপার মোড়া বক্স। আমাকে দেখেই চোখ মুখ কুঁচকে সামনে এসে আমার হাতে বক্সটা ধরিয়ে দিয়ে রাসেল ভাই বলল,
____ ” দুই দিন পর পর জন্মদিন। ওই কয়বার পয়দা হইছিলি তুই? ”
আমি প্রশ্ন করলাম,
___ ” আপনি নাকি রংপুর গেছিলেন এক সপ্তাহ পরে আসবেন তাহলে আজকে আসলেন কেন?”
___ ” আমি কেন ঢাকা এসেছি সেই কৈফিয়ত কি তোকে দিতে হবে? মন চাইছে ঢাকা আসছি মন চাইবে না আসব না “।
আমি হাল ছেড়ে দিলাম কারন এই মানুষটার সাথে তর্ক করে কোন লাভ নেই। পিছন থেকে শিহাব ভাই এগিয়ে এসে বলল,

কাগজে নাম্বার লিখে ক্রাশের হাতে ধরিয়ে দিয়ে বললাম


___ ” নুপুর তোর বার্থডে সেলিব্রেট করার জন্য রাসেল রংপুর থেকে চলে এসেছে “।
শিহাব ভাইয়ের কথা শুনে আমি যেন সাত আসমানে উড়তে লাগলাম। মানুষটা শুধু আমার বার্থডের জন্য এসেছে। আমি কিছু বলব তার আগেই রাসেল ভাই আমারে বলল,
___ ” যা যা বাসায় যা তোর ওই কটকটি খালা দেখলে আবার কাউকাউ শুরু করবে।”
___ ” একবারে নিয়ে গেলেই তো হয় “।
মনের সব সাহস একসাথে করে বলে ফেললাম। ভেবেছিলাম নির্ঘাত এক ঝাড়ি খাব কিন্তু বেশ কিছুক্ষন পরেও যখন ঝাড়ির শব্দ শুনলাম না তখন রাসেল ভাইয়ের মুখের দিকে তাকিয়ে দেখি মানুষটার মুখে মুচকি একটুকরো হাসি। আমার একদম কাছে এস দাঁড়াল আমার বরাবর তারপর হাত দিয়ে থুতনী উঁচু করে বলল,
___ ” এমন করে রাতের আঁধারে চোরের মত না দিনের আলোর ফুলের পালকি সাজিয়ে তোরে নিয়ে যাব।”
তারপর হঠাৎই টোন চেঞ্জ করে বলল,
___ ” যা যা বাসায় যা। “


মনটা এত এত খারাপ হচ্ছিল বলার মত না।

উনি যেন শরতের আকাশ এই রোদ্দুর এই মেঘ। কিছু না বলে মাথা নিচু করে বাসার পথ ধরলাম। হঠাৎই টের পেলাম এক জোড়া হাত আমাকে পেছন থেকে জড়িয়ে ধরেছে। খুব শক্ত করে জড়িয়ে ধরা এই হাত জোড়া যে বড্ড পরিচিত আমার। কাঁধের উপরে থুতনী ঠেকিয়ে রাসেল ভাই বলল,
___ ” ভালবাসি অনেক অনেক “।

মারিয়া আফরিন নুপুর

About haxor3

4 comments

  1. I used to be able to find good information from your articles.

  2. If you are going for most excellent contents like
    myself, simply pay a visit this web site all the time for the reason that it gives quality contents, thanks

  3. Hi there, its good piece of writing on the topic of media print, we all
    be aware of media is a fantastic source of facts.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *